বৃহস্পতিবার, ২৫ Jul ২০২৪, ১০:৪৬ অপরাহ্ন

বদরগঞ্জে সাব-রেজিস্ট্রারের পদ শূন্য থাকায় ভোগান্তিতে সাধারণ মানুষ

আফরোজা বেগম, রংপুর প্রতিণিধিঃঃ
রংপুরের বদরগঞ্জে এক বছর ধরে সাবরেজিস্ট্রারের পদ শূন্য রয়েছে। খ-কালিণ সাবরেজিস্ট্রার দিয়ে চলছে অফিসের কার্যক্রম। একারণে জমি ক্রয়-বিক্রয়ে সাধারণ মানুষ চরম ভোগান্তির শিকার হচ্ছেন। অন্যদিকে প্রতিদিন দলিল সম্পাদন না হওয়ায় অলস সময় পার করছেন দলিল লেখকরা।
জানা গেছে, গত বছরের ৮জানুয়ারি বদরগঞ্জ সাবরেজিস্ট্রার মিজানুর রহমান বদলি সূত্রে রংপুর সদরের সাবরেজিস্ট্রার কার্যালয়ে যোগদান করেন। তখন থেকে বদরগঞ্জে খন্ডকালীন সাবরেজিস্ট্রারের দায়িত্ব পালন করেছেন মিঠাপুকুরের সাবরেজিস্ট্রার বদিয়ার রহমান মন্ডল। কিন্তু তিনি ২৭ জুলাই রংপুরের মিঠাপুকুর থেকে পীরগাছা উপজেলায় বদলী হয়েছেন। এরপর ১আগষ্ট থেকে খ-কালিণ সাবরেজিস্ট্রারের দায়িত্ব পালন করেন দিনাজপুরের ফুলবাড়ির সাবরেজিস্ট্রার আব্দুর রশিদ মন্ডল। তিনি মাত্র ১৫দিন দায়িত্ব পালন করার পর ১৬আগস্ট আবারো খ-কালিণ সাবরেজিস্ট্রারের দায়িত্ব নেন পীরগাছার সাবরেজিস্ট্রার বদিয়ার রহমান মন্ডল। তখন থেকে তিনি সপ্তাহে দুইদিন বুধ ও বৃহস্পতিবার বদরগঞ্জ সাবরেজিস্ট্রার কার্যালয়ে বসছেন। সাবরেজিস্ট্রার কার্যালয়ের মোহরার আব্দুর রহমান বলেন, ‘বদরগঞ্জে সপ্তাহে গড়ে দলিল সম্পাদন হত দুই শতাধিক। কিন্তু স্থায়ী সাবরেজিস্ট্রার না থাকায় দুই দিনে মাত্র ৭০ থেকে ৮০টি দলিল সম্পাদন হচ্ছে।’
উপজেলার দামোদরপুর ইউনিয়নের আমরুলবাড়ী গ্রামের আব্দুল মালেক বলেন, ‘প্রয়োজনের তাগিদে নিজের জমি বিক্রি করব, কিন্তু সাবরেজিস্ট্রার না থাকায় তা’ বিক্রি করতে পারছি না। একারণে জমি ক্রেতাও টাকা দিচ্ছে না।’
লোহানীপাড়া ইউনিয়নের লোহানীপাড়ার কৃষক ইদ্রিস আলী বলেন, ‘জমি হামার; বেচামো হামরায়। অপিসোত আসি দেকোচি অপিচার (সাবরেজিস্ট্রার) নাই। এইটা একটা কথা হইলো বাহে?’ তিনি প্রশ্ন রেখে বলেন, ‘সরকারের অফিসোত অপিচার থাকপার নেয় ক্যান?’
বদরগঞ্জ দলিল লেখক সমিতির সাধারণ সম্পাদক রুহুল আমিন সরকার বলেন, ‘স্থায়ী সাবরেজিস্ট্রার না থাকায় জমি ক্রয়-বিক্রয়ে এসে সাধারন মানুষ চরম ভোগান্তির শিকার হচ্ছেন।’
বদরগঞ্জ দলিল লেখক সমিতির সভাপতি আব্দুল কুদ্দুস সরকার বলেন, ‘এখানে ১০২জন দলিল লেখক রয়েছেন। প্রতিদিন দলিল সম্পাদন না হওয়ায় তারা অলস সময় পার করছেন।’
এ ব্যাপারে রংপুর জেলা রেজিস্ট্রার মকবুল হোসেন বলেন, ‘অনেক আগেই সেখানে সাবরেজিস্ট্রার চেয়ে উর্ধতন কর্তৃপক্ষের কাছে পত্র পাঠিয়েছি। কিন্তু এখনও কোন সাড়া পাওয়া যায়নি।’

Please Share This Post in Your Social Media

© All rights reserved © 2024  Ekusharkantho.com
Technical Helped by Titans It Solution