বৃহস্পতিবার, ২৩ মে ২০২৪, ০৩:৫০ পূর্বাহ্ন

এপ্রিলে আসছে বেনেলি টিএনটি

বিজ্ঞান-প্রযুক্তি ডেস্ক:: এপ্রিলে দেশের বাজারে বিক্রি শুরু হচ্ছে বেনেলির বহুল প্রত্যাশিত বাইক টিএনটি। দাম হবে ১ লাখ ৮৫ হাজার টাকার আশেপাশে।

২০১৭ সালের তৃতীয় ঢাকা বাইক শোতে বেনেলির পরিবেশক স্পিডোজ লিমিটেড তাদের ফ্লাগশিপ বাইক বেনেলি টিএনটি প্রদর্শন করে। সে সময় স্পিডোজ ঘোষণা দিয়েছিল সেই বছরই এটি বাজারে আসছে। কিন্তু বছর পার হলেও বাইকটির দেখা মেলেনি। অবশেষে মিললো সুখবর!

বেনেলি মূলত ইতালিয়ান মোটরসাইকেল উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান। বাংলাদেশে কিওয়ে এবং বেনেলির অফিশিয়াল ডিস্ট্রিবিউটর হচ্ছে স্পিডোজ লিমিটেড।

প্রতিষ্ঠানটির উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক জামান এস খান সৌরভ বলেন, বেনেলি টিএনটি ১৫০ তরুণ এবং যুবকদের মনের মতো করে বানানো একটি মোটরবাইক। এতে গতির সঙ্গে রাইডিং কমফোর্টও মিলবে শতভাগ। এপ্রিলে বাইকটি দেশের বাইক বাজারে পাওয়া যাবে। বাইকটির মূল্য ১ লাখ ৮৫ হাজার টাকা অথবা আসে পাশেই নির্ধারিত হবে।

‘এস্কেপ মেশিন’ নামে পরিচিত বাইকটির লুকিং বেশ আকর্ষণীয়। সামনে থেকে দেখলে মনে হবে কোন ক্ষীপ্র চিতা তাকিয়ে আছে রাগান্বিত দৃষ্টিতে। এখনি হয়ত ছুটবে শিকারের পানে। ১৫০ সিসির এই বাইকটিতে রয়েছে ইএফআই ওয়াটার কুল ইঞ্জিন। সারাদিন বাইক চালানোর নিশ্চয়তা রয়েছে এই ইঞ্জিনে।

১৩.৫ লিটার ফুয়েল ট্যাঙ্ক, রেসিং রেয়ার সাসপেনশন, রেস ইন্সপায়ারড এক্সজস্ট, প্রশস্ত চাকা এবং টায়ার, অ্যালুমিনিয়াম বডি, ফোর স্ট্রোক এসওএইচসি ইঞ্জিন এবং হাই পারফরমেন্স ডিস্ক ব্রেক রয়েছে এই বাইকটিতে। দুই ভালব বিশিষ্ট বাইকটিতে সিঙ্গেল সিলিন্ডার ব্যবহার করা হয়েছে। ইঞ্জিন ১৩.৮২বিএইচপি ও ১৩.৫এনএম টর্ক সমৃদ্ধ।

৫ স্পিড গিয়ার বক্সের বাইকটিতে আপ সাইড ডাউন ফ্রন্ট সাসপেনশন ও রিয়ার মনোশক সাসপেনশন সংযোজন করা হয়েছে। দেখতে আকর্ষণীয় এই বাইকটির ওজন ১৩৬ কেজি। এর দুই চাকায়ই অ্যালয় হুইল এবং টিউবলেস টায়ার রয়েছে। ফ্রন্টে আছে ২৬০মিমি ডিস্ক ব্রেক। রিয়ারে আছে ২৪০ মিলিমিটার ডিস্ক ব্রেক। এতে কম্বি ব্রেকিং সিস্টেম ব্যবহার করা হয়েছে।

১৩.৫ লিটার ফুয়েল ট্যাঙ্কের বাইকটিতে এলএইডি ইন্ডিকেটর এবং হ্যালোজেন হেডলাইট সংযোজন করা হয়েছে।  টিএনটি ১৫০ সিসি বাইকটিতে ফুল ডিজিটাল স্পিডোমিটার ব্যবহার করা হয়েছে। বাইকটির চাবিতে ব্যবহার করা হয়েছে স্ক্র্যাচলেস কি সিস্টেম। চাবিটি ভাঁজ করে রাখা যাবে। চাবি মোবাইল ফোনের সঙ্গে পকেটে রাখলেও ফোনে পর্দায় দাগ পড়বে না।

সামনের চাকায় আছে টেলিস্কোপিক ফর্ক। মনো শক রয়েছে বাইকটির পেছনের অংশে। ফলে বাইকের চালক এবং আরোহী উভয়ই ঝাঁকুনি ছাড়াই পথ চলতে পারবেন। ৫ গিয়ারের ইন্টারন্যাশনাল সিস্টেমের এই বাইকে ইলেকট্রিক এবং কিক স্টার্ট রয়েছে। টিএনটি ১৫০ সিসি বাইকটির গ্রাউন্ড ক্লিয়ারেন্স ১৭০ মিলিমিটার।

Please Share This Post in Your Social Media

© All rights reserved © 2024  Ekusharkantho.com
Technical Helped by Titans It Solution