সোমবার, ১৭ Jun ২০২৪, ০১:০৬ অপরাহ্ন

ভলিবল প্রতিযোগীতায় বিএসএফকে হারিয়ে জয়ী বিজিবি

জিন্নাতুল ইসলাম জিন্না, লালমনিরহাট প্রতিনিধি::
বিজিবি-বিএসএফের মধ্যে সীমান্ত সম্পর্ক উন্নয়নে অনুষ্ঠিত প্রীতি ভলিবল প্রতিযোগীতায় ২/১ সেটে বিএসএফকে পরাজিত করে চ্যাম্পিয়ন ট্রফি অর্জন করে বিজিবি। বর্ডার গার্ড বাংলাদেশের (বিজিবি) বিজয় অর্জনের সাথে সাথে উপস্থিত দর্শকরা বাধভাঙা উল্লাসে ফেটে পড়েন।
১৬ জানুয়ারী মঙ্গলবার দুপুর আড়াইটা থেকে বিকাল সাড়ে ৫টা পর্যন্ত লালমনিরহাটের পাটগ্রাম উপজেলার বিচ্ছিন্ন লোকালয় বহুল আলোচিত দহগ্রাম-আঙ্গরপোতা এলাকার দহগ্রাম সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে বিজিবি-বিএসএফের মধ্যে এই ভলিবল প্রতিযোগীতা অনুষ্ঠিত হয়।
দহগ্রাম সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে অনুষ্ঠিত বিজিবি-বিএসএফ ভলিবল প্রতিযোগীতার সমাপনী পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে ভারতীয় কোচবিহার ৪৫-বিএসএফ ব্যাটালিয়নের পরিচালক শুভ্রত রায় শুদ্ধ বাংলা ভাষায় দর্শকদের উদ্দেশ্যে বলেন, ‘আমরা বিজিবির আমন্ত্রণে দহগ্রাম সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে ভলিবল প্রতিযোগীতায় অংশ নিতে পেরে আনন্দিত। প্রতিযোগীতায় জয়-পরাজয় থাকে। এই প্রতিযোগীতায় জয়-পরাজয় মুখ্য বিষয় নয়। কারণ বিজিবি-বিএসএফের মধ্যে সীমান্ত সম্পর্ক উন্নয়ন প্রতিযোগীতার মুল লক্ষ্য। ভলিবল প্রতিযোগীতার মাধ্যমে বিজিবি-বিএসএফের সম্পর্ক আরো এক ধাপ এগিয়ে গেল এবং সুদৃঢ় হলো। এই সম্পর্ক চোরাচালান প্রতিরোধে এবং সীমান্ত হত্যা বন্ধে দুই দেশের জনগণের মধ্যে ভ্রাতৃত্বপূর্ণ সেতুবন্ধনে ভূমিকা রাখবে বলে বিএসএফ বিশ্বাস করে।’
অপরদিকে রংপুর-৭ বিজিবি ব্যাটালিয়নের পরিচালক লে. কর্নেল মাহফুজ উল বারী বলেন, ‘বিজিবি-বিএসএফের চমৎকার সম্পর্ক উন্নয়নে ভলিবল প্রতিযোগীতার আয়োজন করা হয়েছে। সম্পর্কও উন্নয়ন হচ্ছে। সীমান্তে বসবাসকারী অধিবাসীদের নিকট আমাদের উভয় সীমান্ত রক্ষী বাহিনীর বিশেষ অনুরোধ, আপনারা অবৈধভাবে সীমান্ত অতিক্রম করবেন না। চোরাচালান ব্যবসায় জড়াবেন না। কারণ এই চোরাচালান ব্যবসার কারণে উভয় সীমান্ত বাহিনী তথা দেশের সুসম্পর্ক বিনষ্ট হয়। আপনারা নিজে সীমান্তে যাবেন না, অন্যদেরও যেতে দেবেন না। তাহলে সীমান্তে কেউ আটকও হবে না এবং কেউ গুলিতে মারাও যাবে না। গুলিতে নিরীহ মানুষের মৃত্যু হোক এটা কারো কাছে কাম্য নয়। আমরা শপথ নিই। ঝুকি নিয়ে অবৈধভাবে সীমান্তে যাবো না, গুলিতে জীবন হারানো না।’
এরআগে ভারতীয় কোচবিহার-৪৫ বিএসএফ ব্যাটালিয়নের পরিচালক লে. কর্নেল শুভ্রত রায়ের অনুরোধে দহগ্রামের প্রবীণ ব্যক্তিত্ব বীর মুক্তিযোদ্ধা ও সাবেক ব্যাংকার আব্দুর রাজ্জাক পায়রা উড়িয়ে ভলিবল খেলার উদ্বোধন করেন। বিজিবি-বিএসএফের ভলিবল প্রতিযোগীতা এক নজর দেখার জন্য বিভিন্ন শ্রেণি পেশার শত শত নারী-পুরুষ, ছাত্র-ছাত্রী উপস্থিত ছিলেন। বিজিবি-বিএসএফের খেলোয়াড়দের বিপুল উৎসাহ-উদ্দীপনা যোগাতে দর্শকরা করতালির মাধ্যমে অভিনন্দন জানায়। পয়েন্ট হওয়ার সময় মঞ্চে উপস্থিত থাকা বিজিবি-বিএসএফ কর্মকর্তারাও করতালি দিয়ে খেলোয়াড়দের উৎসাহ দেন।
বর্ডার গার্ড বাংলাদেশের (বিজিবি) পক্ষে নেতৃত্ব দেন রংপুর-৭ বিজিবি ব্যাটালিয়নের পরিচালক লে. কর্নেল মাহফুজ উল বারী, উপ-পরিচালক মেজর মুহীত উল আলম, দহগ্রাম ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান কামাল হোসেন ও ভারতীয় বিএসএফের পক্ষে উপস্থিত ছিলেন কোচবিহার-৪৫ বিএসএফ ব্যাটালিয়নের পরিচালক লে. কর্নেল শুভ্রত রায়সহ উর্দ্ধতন কর্মকর্তাগণ। এ সময় দহগ্রাম ইউপি চেয়ারম্যান কামাল হোসেনসহ বিজিবি-বিএসএফের কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন।
ভলিবল প্রতিযোগীতার প্রথম সেটে ভারতীয় বিএসএফকে হারিয়ে বিজিবি বিজয় অর্জন করলেও দ্বিতীয় সেটে বিজিবিকে হারিয়ে বিএসএফ খেলায় সমতা ফিরে আনেন। কিন্তু তৃতীয় সেটে বিএসএফকে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন ট্রফি অর্জন করে বিজিবি। বিএসএফ টিমের ৩ নম্বর জার্সি পরিহিত অরুন কুমার সেরা খেলোয়াড় নির্বাচিত হন।

Please Share This Post in Your Social Media

© All rights reserved © 2024  Ekusharkantho.com
Technical Helped by Titans It Solution