বুধবার, ২৪ Jul ২০২৪, ০৩:৩৮ পূর্বাহ্ন

ওষুধ খেলেই ফের গজাবে দাঁত!

দাঁত পড়ে গেলে ফের দাঁত গজাবে

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি ডেস্ক:: কেমন হতো যদি চুল কাটার পর যেমন ফের চুল গজায়, তেমনই দাঁত পড়ে যাওয়ার পর মাড়ির ওই অংশ দিয়ে ফের দাঁত গজায়, রূপকথার মতো মনে হচ্ছে তো? কিন্তু এটাকেই বাস্তব করে দেখিয়েছেন একদল জাপানি গবেষক। তারা একটি নতুন ওষুধ আবিষ্কার করেছেন, যার সাহায্যে মানুষের দাঁত পড়ে গেলে ফের দাঁত গজাতে পারে।

মূলত মানুষের মাড়িতে ‘ইউটারিন সেনসিটাইজেশন অ্যাসোসিয়েটেড জিন-১ প্রোটিন’ বা ‘ইউএসএজি-১ প্রোটিন’ (USAG-1) নামে একটি অ্যান্টিবডি থাকে। এই অ্যান্টিবডিই ফের দাঁত গজানোকে প্রতিরোধ করে।

জাপানের কিয়োটো ইউনিভার্সিটি হাসপাতালের বিজ্ঞানীরা এই ইউএসএজি-১ প্রোটিনকে দমন করতে পারে এমন এক ইন্ট্রাভেনাস (সরাসরি শিরায় ওষুধ দেওয়া) চিকিৎসা আবিষ্কার করেছেন।

বেজি এবং ইঁদুরের ওপর পরীক্ষা করে দেখা গেছে, কোনো উল্লেখযোগ্য পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া ছাড়াই ওষুধটি কাজ করছে। তবে হিউম্যান ট্রায়াল, অর্থাৎ মানুষের ওপর পরীক্ষা এখনো হয়নি। তাই এই চিকিৎসায় সত্যি সত্যি ফের মানুষের দাঁত গজাবে কি না, তা এখনো পরীক্ষিত নয়।

কিয়োটো ইউনিভার্সিটি হাসপাতালের বিজ্ঞানীরা জানিয়েছেন, চলতি বছরের সেপ্টেম্বর থেকে ২০২৫ সালের আগস্ট মাস পর্যন্ত মানবদেহের এই ওষুধের প্রথম পরীক্ষা করা হবে। ৩০ থেকে ৬৪ বছর বয়সি ৩০ জন পুরুষের ওপর এই পরীক্ষা চালানো হবে, যাদের অন্তত একটি করে ‘মোলার’ বা মাড়ির দাঁত পড়ে গেছে। সেই পরীক্ষা সফল হলে, গবেষকরা যাদের আংশিকভাবে ‘ইডেন্টুলিজম’ আছে, অর্থাৎ এক থেকে পাঁচটি দাঁত নেই, তাদের ওপর এই ওষুধ প্রয়োগ করা হবে।

গবেষণা দলের প্রধান ও কিয়োটো ইউনিভার্সিটি হাসপাতালের ডেন্টিস্ট এবং ওরাল সার্জারি বিভাগের প্রধান কাতসু তাকাহাশি বলেছেন, ‘যাদের দাঁত ক্ষয়ে গিয়েছে বা দাঁত পড়ে গেছে, তাদের সাহায্য করার জন্য আমরা কিছু করতে চেয়েছিলাম। এখনো পর্যন্ত দাঁতের ক্ষয় বা দাঁত পড়ে যাওয়ার কোনো স্থায়ী নিরাময় নেই। কোনো চিকিৎসা নেই। আমরা মনে করি, অনেক মানুষই চান যে তাদের দাঁত ফের গজাক। এই নিয়ে মানুষের প্রত্যাশা অনেক বেশি।’

তিনি আরও জানিয়েছেন, হিউম্যান ট্রায়াল সফল হলে ২০৩০ সালের মধ্যেই বাজারে পাওয়া যাবে ওষুধটি।

সূত্র: নিউজন্যাশন

Please Share This Post in Your Social Media

© All rights reserved © 2024  Ekusharkantho.com
Technical Helped by Titans It Solution