বুধবার, ২৪ Jul ২০২৪, ০৩:২৮ পূর্বাহ্ন

এসি রুমে থাকলে হিট স্ট্রোকের ঝুঁকি বাড়ে!

ফিচার ও স্বাস্থ্য ডেস্ক:: জুন মাস প্রায় শেষের পথে। আসছে জুলাই। এই সময়ে সাধারণত বর্ষা শুরু হয়ে যাওয়ার কথা। কিন্তু তার কোনো আভাস নেই, এমনকি গরমেরও খামতি নেই। প্রায়ই আবহাওয়াটা ভ্যাপসা হয়ে যাচ্ছে। এমন পরিস্থিতিতে রাতে এসি ছেড়ে ঘুমান অনেকেই। দিনের অধিকাংশ সময়টাও কাটান এসির মধ্যে।

কিন্তু চিকিৎসকরা বলছেন, এসির মধ্যে কাটানো এই অভ্যাসই ডেকে আনতে পারে মারাত্মক বিপদ। গরম যত বাড়ে, ততই বাড়ে এসির মধ্যে সময় কাটানোর প্রবণতা। এটিই সমস্যার কারণ হিসাবে দেখা দিচ্ছে।

কী কী সমস্যা হচ্ছে এর ফলে? কীভাবে সামলাবেন সেগুলো? জেনে নিন।

চিকিৎসকদের কথায়, দুপুর বা বিকালের দিকে বাইরের তাপমাত্রা মারাত্মক আকার নেয়। এই সময়ে যারা কিছুটা সময় এসির মধ্যে কাটান, তাদের ক্ষেত্রে বিপদ সবচেয়ে বেশি।

কারণ, এই সময়ে এসির মধ্যে যে তাপমাত্রা থাকে, তার সঙ্গে বাইরের তাপমাত্রার পার্থক্য প্রায় ১৫ ডিগ্রির মতো হয়ে যেতে পারে। যারা এসি আরও কম তাপমাত্রায় রাখেন, তাদের ক্ষেত্রে এই পার্থক্য ২০ ডিগ্রিতে যায়। এটিই বিপদ ডেকে আনতে পারে।

চিকিৎসকদের কথায়, এই সময়ে এসি থেকে গরমে বাইরে বেরোলে দুই অংশের তাপমাত্রার বিপুল পার্থক্য শরীর সহ্য করতে পারে না। তার ফলেই হিট স্ট্রোকের মতো ঘটনা ঘটে যেতে পারে।

সেই কারণে এসি থেকে হঠাৎ করে খোলা জায়গায় গরমের মধ্যে বেরোতে বারণ করছেন চিকিৎসকরা। বরং মাঝে কিছুটা সময় এমন ঘরে কাটানোর পরামর্শ দিচ্ছেন, যেখানে এসি চলছে না।

এছাড়া এই সময়ে বেশি পরিমাণে পানি খাওয়ার পরামর্শও দিচ্ছেন বিশেষজ্ঞরা। তাদের কথায়, এসির মধ্যে থাকলে তেষ্টা কম পায়। তার পরেও পানি খেতে হবে পর্যাপ্ত পরিমাণে। না হলে শরীর শুকিয়ে ডিহাইড্রেশনের মতো সমস্যা দেখা গিতে পারে।

এর পাশাপাশি চা, কফি পান করার ক্ষেত্রেও কিছুটা বিধিনিষেধ পালন করতে বলছেন চিকিৎসকরা। মদ্যপান এবং ধূমপানের অভ্যাসও ত্যাগ করতে বলছেন এই সময়ে। না হলে বিপদ আরও বাড়তে পারে বলে তাদের আশঙ্কা।

Please Share This Post in Your Social Media

© All rights reserved © 2024  Ekusharkantho.com
Technical Helped by Titans It Solution